May 27, 2018, 9:36 pm




ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশের থ্রি-হুইলার ব্যবসা

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশের থ্রি-হুইলার ব্যবসা




স্টাফ রিপোর্টার: উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জ জেলার মাধুবপুর মহাসড়কে মাহিন্দ্র, ইজি-বাইক, নসিমন, করিমনসহ থ্রি-হুইলার অবাধে চলাচল করছে।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী রাজনৈতিক দলের জনপ্রতিনিধির ছত্রছায়ায় শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশকে মাসোহারা দিয়ে এ মহাসড়কে থ্রি-হুইলার চলাচল করে আসছে। আবার দেখা গেছে কিছু সংখ্যক থ্রি হুইলাম দেশের কয়েকটি গণমাধ্যমের নাম ব্যবহার করে চলছে।

সরেজমিনে একাধিক থ্রি-হুইলার চালক ও সংশ্লিষ্টরা অভিযোগ করেন, মাধবপুর থেকে এসব থ্রি-হুইলার শায়েস্তাগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড থেকে চুনারুঘাট বাসস্ট্যান্ড, অপর দিকে মাধবপুর বিভিন্ন এলাকায় যেতে হলে মহাসড়কের উপর দিয়েই থ্রি-হুইলারগুলো চলাচল করছে। এছাড়া ভাড়ায় চালিত অর্ধশতাধিক মোটরসাইকেল প্রতিদিন এ মহাসড়কে চলাচল করছে। ভাড়ায় চালিত অধিকাংশ মোটরসাইকেলেরই লাইসেন্স নেই।

আবার অনেক মোটরসাইকেল চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্সও নেই। হাইওয়ে থানা ও ট্রাফিক পুলিশকে মাসোহারা দিয়ে এসব মোটরসাইকেল মহাসড়কে চলাচল করছে। এ মহাসড়কে অবৈধ থ্রি-হুইলার চলাচল করায় প্রায়ই ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা।

গত কয়েক বছরে ছোট বড় সড়ক দুর্ঘটনায় প্রায় ৪০জন নিহত ও আহত হয়েছে আরও দুই শতাধিক ব্যক্তি। হাইওয়ে পুলিশকে উৎকোচ দিয়ে যাত্রীবাহী বাসে এখন গাছ পাচারের অভিযোগ রয়েছে। উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা নির্দেশ দিলে মাঝে মধ্যে হাইওয়ে থানা পুলিশ লোক দেখানো অভিযানের নেমে উপজেলার বাহির থেকে আসা মাহিন্দ্র, ইজিবাইক, নসিমন আটক করে জরিমানা আদায় করেন। এ সময় মাধবপুর-চুনারুঘাট-শায়েস্তগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডভূক্ত থ্রি-হুইলারের সামনে গনমাধ্যমের নাম ও দালালদের মোবাইল ফোনের নাম্বার দিয়ে স্টিকার লাগানো থাকায় ওইসব থ্রি-হুইলার আটক করা হচ্ছেনা।

সম্প্রতি মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশকে মাসোহারা দিয়ে তাদের সামনেই প্রতিদিন চলছে প্রায় ৩০টি অবৈধ থ্রি-হুইলার।

মহাসড়কে পূর্ব মাধবপুরের নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক ব্যাক্তি জানান, সমিতির নির্ধারিত এক শ্রমিক প্রতিদিন মাধবপুর বাসস্ট্যান্ডে ফি বাবদ ২০টাকা করে আমাদের কাছ থেকে আদায় করে আসছে। এছাড়া প্রতিমাসে আরও ১হাজার টাকা করে আমাদের কাছ থেকে নেয়া হয়। আদায়কৃত টাকার একাংশ প্রতি মাসে ট্রাফিক পুলিশকে এবং একাংশ হাইওয়ে থানাকে মাসোহারা হিসেবে দিয়ে আসছেন। বাকি অংশ সমিতির খরচের জন্য জমা থাকে।

কোন মন্ত্রী, সচিব, উচ্চ আদালতের বিচারপতি, উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাসহ কোন ভিআইপি সড়ক পথে এ মহাসড়ক দিয়ে যাতায়াত করলে আগেই পুলিশ আমাদেরকে বিষয়টি অবহিত করে। ফলে ভিআইপিরা চলে গেলে আবারো ফিটনেসবিহীণ গাড়ির দৌড়াত্ব বেড়ে যায়।

সাতবর্গ বাসস্ট্যান্ডভূক্ত মাহিন্দ্র চালক আল আমিন বলেন, মহিন্দ্র শ্রমিকদের কোন সংগঠন না থাকায় মহা সড়কে চলতে গেলে হাইওয়ে পুলিশকে মাসোহারা দিতে হয়। তিনি বলেন আমরা বিভিন্ন ইট মিল থেকে ইট নিয়ে ক্রেতাদের বাড়িতে পৌছে দেই। মাসোহারা দিয়ে আমরা মহাসড়কে ইট বালু বোঝাই মাহিন্দ্র চালাচ্ছি। শুধু থ্রি-হুইলারই নয়; সম্পূর্ণ অবৈধ ভটভটি নসিমন ও করিমন চালকেরা জানান, শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি জসিমকে প্রতিমাসে মাসোয়ারা না দিলে তিনি হয়রানি করেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ট্রাক চালক বলেন, শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের নেতৃত্বে ওসি জসিম ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মাধবপুর-শায়েস্তাগঞ্জ-বাহুবলের বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন সময় চেকপোস্ট বসিয়ে কাগজপত্র যাচাই বাছাইয়ের নামে বিভিন্ন অজুহাতে ট্রাক চালকদের কাছ থেকে এক থেকে পাঁচশত টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করছেন। এ সময় থ্রি-হুইলার চালকদের কাছ থেকেও ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদার করেন হাইওয়ে পুলিশ। কথায় বলে রক্ষক যখন ভক্ষক তখর ভেড়ার কি দোষ।

ভুক্তভোগি থ্রি হুইলার চালকরা জানান, টাকা না দিতে পারলে আল আমীন হোটেল সংলগ্ন অস্থায়ী ঠিকানায় নিয়ে যায় থ্র্র্র্রি হুইলার গুলোকে। সেখানে ক্ষমতাসীন দলের নেতা আবু মিয়াকে নিয়ে প্রতি গাড়ী থেকে ৮হাজার, ১০হাজার, এমনকি ১৮হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে আটককৃত থ্রি হুইলার চালকদের কাছ থেকে। সম্প্রতি মাধবপুর উপজেলার এক সাংবাদিকের গাড়ী আটক করেও টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেন ওসি জসিম। উচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্ন করে আটককৃত যানবাহনের নামে মামলা না দিয়ে রফাদফার মাধ্যমে গাড়ীগুলো ছেড়ে দিচ্ছেন ওসি জসিম। এদের মতো রক্ষক যখন ভক্ষক হয়, তখন জাতি এর থেকে কী আর আশা করতে পারে?

উল্লেখিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি করে সায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি মো. জসিম বলেন, আমরা মহাসড়কে চলন্ত অবস্থায় থ্রি-হুইলার পেলে তা আটক করে জরিমানা আদায় করি।

খবরটি শেয়ার করুন..











© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com