শুক্রবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৮, ১১:৩৮ পূর্বাহ্ন




নওগাঁয় ইরি-বোরো ধান কাটার ধুম!

নওগাঁয় ইরি-বোরো ধান কাটার ধুম!




মোঃ মেহেদী হাসান, নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলায় চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে ধান কাটা-মাড়াই শুরু হয়েছে। চলতি সপ্তাহ তিন দিন বৈরি আবহাওয়া ও বৃষ্টিপাতের কারণে উঠতি পাকা ধান নিয়ে কৃষকরা বিপাকে থাকলেও মেঘলা আকাশের কারণে রোদের অভাবে মাঠপর্যায়ের কৃষকরা শম্ভব গতিতে বোরো ধান কাটা মাড়াই শুরু করেছে। দাম ও ফলন ভাল হওয়ায় কৃষকরা বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছে। তবে পুরোদমে কাটা মাড়াই শুরু হতে আর কয়েক দিন সময় লাগবে। এ দিকে বৈরী আবহাওয়ার জন্য কৃষি অফিস থেকে কৃষকদের দ্রুত ধান কাটার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে ।

কালবৈশাখী ঝড় আর বৃষ্টিপাত হওয়ায় উঠতি পাকা ধান পড়ে যাওয়ায় ধান কাটা শ্রমিকদের নির্ধারিত দরের চেয়ে প্রতি বিঘায় কিছু বাড়তি টাকা গুনতে হচ্ছে। ঝড় বৃষ্টির কারণে পাকা ধান নিয়ে কৃষকরা কিছুটা শংকায় থাকলেও শ্রমিক সংকট নেই। প্রতি বছর এই সময় দেশের দক্ষিণ অঞ্চল বিশেষ করে পাবনা , ভেরামারা, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, পোড়াদহসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ধান কাটা শ্রমিক এবারও এসেছে ।

উপজেলার বাদ পুঁইয়ার কৃষক নজরুল ইসলাম জানান, আমি এ বছর ১৫ বিঘা জমিতে বোরো ধান চাষ করেছি। আবওহাওয়ার কারণে তাড়াতাড়ি ধান কাঁটা শুরু করেছি। গত তিন দিনে ঝড়-বৃষ্টির কারণে নিচু এলাকার তিন বিঘা জমির ধান আংশিক ক্ষতি হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ধান গুলো কাঁটা শুরু করেছি। প্রতি বিঘায় ২০-২২ মণ ফলন হতে পারে। একি গ্রামের কৃষক বেলাল জানায়, আমি ৩ বিঘা জিরা জাতের ইরি ধান আবাদ করেছি। কাঞ্চন গ্রামের কৃষক রহমত জানান ২০ বিঘা জমির মধ্যে ৪ বিঘার ধান হেলে বা শুয়ে পরেছে ।ধান কাটা শুরু হয়েছে ।ফলন ভাল হচ্ছে ২৫/২৬ মণ । উপজেলার, বাগমার নূধনী গ্রামের একাধকি কৃষক জানায় ধান কাটা শুরু হয়েছে ফলন ভাল হচ্ছে ২ থেকে ২৭ মন পর্যন্ত ।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ১১ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভায় এবার চলতি মৌসুমে ২০ হাজার ১৯০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছিল তার চেয়ে অনেক বেশী চাষ হয়েছে ।এবার উপজেলায় রোপন হয়েছে উন্নত ফলনশীল ব্রি ২৮,২৯,৫০,৫৮,৫৯,্র , জিরা , হাইব্রীড,সম্পা ,কাটারী ,বিনা জাতের ধান । উপজেলার কিছু কিছু এলাকায় আগাম রোপন কৃত ইরি ধান কাটা শুরু হয়েছে ।

উপজেলার ১১ টি ইউনিয়নে দিগন্ত জুড়ে পাকা ধানের সোনালী রঙের ঝিলিক ছটাচ্ছে। যতদূর চোখ যায় শুধু পাকা ধানের সোনালী রঙের চোখ ধাঁধানো দৃশ্য। মাঠ জুড়ে পাকা ধান বলে দিচ্ছে গ্রামবাংলার কৃষকের মাথার ঘাম পায়ে ফেলা ইরি-বোরো ধান চাষের দৃশ্য। চলতি মৌসুমে ইরি-বোরো ধানের ভাল ফলনের বুকভরা আশা করছে কৃষকরা। বাজারে নতুন ধানের আমদানি হওয়ায় টুকটাক কেনা-বেচা শুরু হলেও দর ভাল থাকাই কৃষকরা খুশি। জিরা জাতের সুরু ধান মান ভেদে ৮ শ’ ৭০ টাকা পর্যন্ত হাটে-বাজারে বেচা-কেনা হচ্ছে।

বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন র্কতৃপক্ষ ( বিএমডিএ) নওগাঁ-২ সূত্রে জানা যাায় চলতি মৌসুমে উপজেলায় মোট ৪৩৮ টি গভীর নলক’প ও ১৭ টি লো লিপ পাম্প ছালু রয়েছে এর আওতায় ৯ হাজার ৫ শ হেক্টও জমিতে বোর চাষ করা হয়েছে ।এবার সেচ বিষয়ে চাষিদের নিকট কোন প্রকার অভিযোগ পাওয়া যায নি ।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ প্রকাশ চন্দ্র সরকার জানান গত তিন দিনের বৈরী আবহাওয়ার কারনে ১৩০ হেক্টর জমির ধান গাছ মটির সাথে নুয়ে পড়েছে তবে ব্যপক কোন ক্ষতি হয়নি ধান কাটার মজুরী ্একটু বেশী েিত হচ্ছে ,ধান কাটা শুরু হয়েছে ২০/২৫ মণ ফলন হচ্ছে ৭-১০ দিনের মধ্যে ধান কাটা শেষ হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে । শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া ভাল থাকলে কৃষকেরা এবার লাভবান হবে ।

খবরটি শেয়ার করুন..




Loading…








© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com