শুক্রবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৮, ১১:৩৮ পূর্বাহ্ন




স্বৈরাচার শাসক নমরুদের পতন হয়েছিল যেভাবে

স্বৈরাচার শাসক নমরুদের পতন হয়েছিল যেভাবে




হযরত ইবরাহীম (আ.)-এর সময়ে নমরুদ ছিলেন স্বেচ্ছাচারী, স্বৈরাচার এক শাসক। হযরত ইবরাহীম (আ.)-কে প্রতিমা ভেঙে ফেলার অপরাধে অগ্নিকুণ্ডে নিক্ষেপ করেছিল সে। কিন্তু আল্লাহর অসীম কৃপায় হযরত ইবরাহীম (আ.) নিরাপদে অগ্নিকুণ্ড থেকে বের হয়ে আসতে সক্ষম হন।

হযরত ইবরাহীম (আ.) নিরাপদে অগ্নিকুণ্ড থেকে বের হয়ে আসাতে নমরুদ প্রচন্ডভাবে ক্ষিপ্ত হয়। সে ইবরাহীম (আ.)-কে বলে-

‘তোমার আল্লাহর যদি যথার্থই অস্তিত্ব থাকে, তবে তাকে আমার সাথে যুদ্ধ করার জন্য ডেকে আনো। আমি তোমার আল্লাহর ‍বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করছি।’

আল্লাহর সাথে লড়াই করার জন্য পাপিষ্ঠ নমরুদ এক বিশাল বাহিনী গঠন করলো। এই বাহিনী নিয়ে সে ইবরাহীম (আ.)-এর কাছে গিয়ে আল্লাহকে তার সাথে লড়াই করার জন্য আহবান জানায়। সে আকাশের দিকে তীর নিক্ষেপ করে এবং বলতে থাকে-

‘কোথায় তুমি হে ইবরাহীমের আল্লাহ? এসো আমার সাথে যুদ্ধ করো।’

আল্লাহ এই পাপিষ্ঠের সাথে মোকাবেলা করার জন্য এক ঝাঁক মশা প্রেরণ করলেন। ক্ষুদ্র এই মশা বাহিনীর  আক্রমণে নমরুদের বিশাল বাহিনী ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়। নমরুদও এই মশাবাহিনীর আক্রমণে ভয়ে যুদ্ধক্ষেত্র  ছেড়ে পালায়। কিন্তু ঘটনাক্রমে একটি মশা তার নাক দিয়ে ঢুকে তার মস্তিষ্কে গিয়ে অবস্থান নেয়। আল্লাহ তার মস্তিষ্কের অভ্যন্তরে মশাটিকে জীবিত রাখেন।

মস্তিষ্কের ভিতরে অবস্থান নিয়ে মশাটি নমরুদকে সবসময় কামড়াতে থাকে। মস্তিষ্কে মশার কামড়ে অতিষ্ঠ হয়ে  নমরুদ নিজের মাথায় নিজেই আঘাত করতে থাকে। কিন্তু যতই সে আঘাত করুক, মশা ততই তাকে কামড়াতে থাকে। নিজেকে নিজে আঘাত করতে করতে নমরুদ ক্লান্ত হয়ে পড়লো।

তাই সে তার একজন সৈনিককে ডেকে তাকে তার মাথায় আঘাত করতে বললো। কিন্তু মশার কামড় তাতে কোনো ক্রমেই কমে না। শেষে সৈনিকটি নমরুরদের মাথায় মুগুর দিয়ে আঘাত করলে মশা কিছু সময়ের জন্য কামড়ানো বন্ধ করলো।

মশা পরে আবার কামড়ানো শুরু করলে সৈনিকটি নমরুদের মাথায় আবার মুগুর দ্বারা আঘাত করলে মশা কিছু সময়ের জন্য কামড়ানো বন্ধ করে। এভাবে বারবার মশা কামড়ায় আর নমরুদকে মাথায় মুগুর দ্বারা আঘাত করতে হয়।

একদিন নমরুদের মাথায় মুগুর দ্বারা আঘাত করতে করতে সৈনিকটি নমরুদকে এত প্রচন্ডভাবে আঘাত করলো যে, তাতে নমরুদের মাথা ফেটে যায়। মাথা ফেটে গিয়ে নমরুদ মৃত্যুমুখে পতিত হয়।

সর্বশক্তিমান আল্লাহর সাথে লড়াই করার জন্য নমরুদ প্রচন্ড দম্ভ করে চ্যালেঞ্জ করেছিলো। কিন্তু আল্লাহর একটি ক্ষুদ্র সৃষ্টির কাছেই তাকে শেষ পর্যন্ত নির্মমভাবে পরাজিত হতে হলো। আল্লাহ রাব্বুল আমাদের আমাদের নমরুদের এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নেয়ার তৌফিক দান করুন।

খবরটি শেয়ার করুন..




Loading…








© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com