রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:১৩ অপরাহ্ন



ইসলাম নির্মুলে যা করা হচ্ছে অস্ট্রিয়ায়

ইসলাম নির্মুলে যা করা হচ্ছে অস্ট্রিয়ায়



মধ্য ইউরোপের খৃষ্টান প্রধান দেশ অস্ট্রিয়ায় দেশটির সরকার শিশুদের স্কুলে হিজাব নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে।

কিন্টারগার্ডেন ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১০ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের হিজাব পরা নিষিদ্ধ করতে চায় অস্ট্রিয়ার কেন্দ্রীয় সরকার।

ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে বর্তমান অস্ট্রিয়া সরকার হিজাব নিয়ে বিতর্ক শুরু করেছে। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে খৃষ্টান রক্ষণশীল অস্ট্রিয়ান পিপলস পার্টি এবং ডানপন্থী পপুলিস্ট ফ্রিডম পার্টি জোট বেধে সরকার গঠন করে।

অবাক করার বিষয় হচ্ছে, ডানপন্থী এই সরকারের প্রধান ব্যক্তি অস্ট্রিয়ান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ মুসলিম কিন্টারগার্ডেন বন্ধ করে দিতে মত প্রকাশ করলেও অন্যান্য ধর্মের কিন্টারগার্ডেনে তার সরকার অর্থনৈতিক সহযোগিতা করছে।

অস্ট্রিয়ান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ

হিজাব নিষিদ্ধের প্রসঙ্গে অস্ট্রিয়ার বিরোধীদল ‘সোসাল ডেমোক্রেটস’ বিভক্ত হয়ে পড়েছে। কেউ বলেছেন, হিজাব নিষিদ্ধ করা অত্যন্ত নিন্দনীয় কাজ।

আবার কেউ বলছেন, এই নিষেধাজ্ঞা ১০ বছর থেকে বাড়িয়ে ১৪ বছরের মেয়েদের পর্যন্ত করা দরকার।

অস্ট্রিয়ার ভাইস চ্যান্সেলর আরো একধাপ এগিয়ে মন্তব্য করেছেন, সব বয়সী শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেই হিজাব নিষিদ্ধ করা উচিত।

অস্ট্রিয়ার ভাইস চ্যান্সেলর হেইঞ্জ-ক্রিশ্চিয়ান স্ট্রেসি

হিজাব নিষিদ্ধের এই প্রচেষ্টা সরকারের বেশ কিছু সামাজিক অবিচারমূলক কাজের প্রতিক হয়ে আছে। এগুলোর মাধ্যমে সরকার ভোটারদের দ্বিধাবিভক্ত করার চেষ্টা করছে।

তবে অস্ট্রিয়াতে হিজাব নিষিদ্ধ করা সহজ হবে না। কারণ অস্ট্রিয়া বিশ্ব মানবাধিকার ঘোষণা গ্রহণ করেছিল।

এছাড়া, ১৯১২ সালে ‘ইসলাম এ্যাক্ট’ করা হয়েছিল। এই এ্যাক্ট অনুযায়ী মুসলিমরা সব বয়সেই হিজাব পরার অধিকার পায়।

এই সরকার যখন তাদের নীতি ঘোষণা করেছিল, তখন বেশ ভালো অবস্থানে ছিল। কিন্তু হিজাব নিষিদ্ধ এখন কার্যকর করতে চাইলেও সরকার বর্তমানে বেশ দুর্বল অবস্থানে আছে।

সরকার যখন বুঝতে পেরেছে যে, হিজাব নিষিদ্ধের এ্যাক্ট পাশ করা সহজ হবে না তখন বিভিন্ন কৌশলের আশ্রয় নিয়ে সেটা করতে চেষ্টা করছে।

খবরটি শেয়ার করুন..








© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com

Desing & Developed BY W3Space.net