রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন



নাশকতার চেষ্টা করলে ছাড় নয়: বিএনপিকে কাদের

নাশকতার চেষ্টা করলে ছাড় নয়: বিএনপিকে কাদের



২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বিএনপি নাশকতার চেষ্টা করলে ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউয়ে ঢাকা-লক্ষ্মীপুর রুটে আল-রিয়াদ পরিবহন বাসের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি এটাকে নিয়ে যদি কোনো সমস্যা তৈরি করতে চায়, সহিংস-নাশকতা করতে চায়, তাহলে কোনো প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা কঠোর অবস্থানে আছে।

তিনি আরো বলেন, আমরা ন্যায়বিচার চাই। আমি নিজেও ওই হামলায় আহত হয়েছি। আমাদের নেত্রীর একটা কানের শ্রবণ শক্তি চলে গেছে। আইভি রহমানসহ ২৪ জনের প্রাণের প্রদীপ চিরদিনের মতো নিভে গেছে। কাজেই এই ধরণের হত্যাকাণ্ডের বিচার বাংলাদেশে হবে না এই ইমপিউনিটি কালচার গড়ে তুলবো?

২১ আগস্টের সময় বিএনপি ক্ষমতায় ছিলো উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সবাই জানে এর মাস্টার মাইন হচ্ছে হাওয়া ভবন, তারেক জিয়া। এখন সত্যকে আড়াল করে লাভ নাই। তারপরও আমরা এই ব্যাপারে রায়ের আগে কোনো কমেন্ট করতে চাই না। কিন্তু ন্যায়বিচার যেন আমরা পাই। আমরা ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করি আদালতে।

তিনি আরো বলেন, আমরা জানি এই মামলা রায় নিয়ে তারা (বিএনপি) এখন থেকে বড় ধরনের নাশকতা ও সহিংসতার পরিকল্পনা নিচ্ছে। কিন্তু তারা ভুলে গেছে এটা ২০১৪ সাল নয়, এখন ২০১৮ সাল। সেই ধরণের কোনো অপচেষ্টা হলে প্রতিরোধ করবে দেশের জনগণ। আমাদের লাগবে না। সহিংসতার উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যা করার দরকার হয়, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা করবে। প্রয়োজনে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যথাযথ ব্যবস্থা নিবে।

জাতীয় ঐক্যের পাঁচ দফার দাবি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, পাঁচ দফার ভিত্তিতে পাঁচ মিশালি জাতীয় ঐক্য। এই জগাখিচুরি ভাঙ্গণপ্রবণ ঐক্য, জাতির কাছে আবেদনহীন।

প্রসঙ্গত, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের জনসভায় গ্রেনেড হামলা মামলার আসামিদের মধ্যে আছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান, খালেদা জিয়ার ভাগ্নে সাইফুল ইসলাম ডিউক, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিণ্টু। এই আসামিদের সবার মৃত্যুদণ্ড চেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ।

১৪ বছর আগে বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে অন্যতম নৃশংস গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘোষণা হবে আগামীকাল বুধবার। এই রায়কে ঘিরে বিএনপিতে উদ্বেগ স্পষ্ট। এরই মধ্যে দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তারেক রহমানকে ফাঁসানোর চেষ্টা করলে দেশবাসী তা মেনে নেবে না।

খবরটি শেয়ার করুন..








© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com
Desing & Developed BY W3Space.net