রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:২০ অপরাহ্ন



শিশুদের বুদ্ধিমান করে গড়ে তোল‍ার উপায়

শিশুদের বুদ্ধিমান করে গড়ে তোল‍ার উপায়



সারাদিন বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার মধ্যে থাকলে বা উলটোলে সাধারণ জ্ঞানের পরিধি কিছুটা বাড়ে বই কী। তবে সকলেরই যে এমনটা হবে, তা হলফ করে বলা যায় না।

কিন্তু বাড়িতে বেশি বই থাকলে ও ছোট বয়স থেকে বাচ্চাদের পড়ার অভ্যেস গড়ে তুললে ছেলেমেয়েরা যে বুদ্ধিমান হয় সম্প্রতি করা একটি সমীক্ষার ফলাফল থেকে সেরকম তথ্যই উঠে এসেছে। এই সমীক্ষাটি বেশ । কয়েকমাস যাবত্‍ করেছেন অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও ইউনিভার্সিটি অব নেভাড়ার গবেষকরা।

কোন দেশের মানুষের বাড়িতে সবচেয়ে বেশি করে বই থাকে, সেই বিষয়েই মূলত গবেষণা করা হয়েছিল, তার ভিত্তিতেই শিশুদের এই তথ্যটি উঠে এসেছে। সেখানে বলা হয়েছে বাড়িতে যদি বেশি বই। থাকে, তাহলে বাচ্চারা হয়তো সেগুলোর সব পড়ে না, কিন্তু যে কটা পড়ে, কিংবা পাতা ওলটায়, এর মাধ্যমে তারা শিক্ষা-দীক্ষায় উন্নতি করে, আইকিউ লেভেলটাও সমবয়সিদের তুলনায় বেশি থাকে।

মোটের উপর তারা বেশি বুদ্ধিমান হয়। কয়েকদিন আগে সোশ্যাল সায়েন্স রিসার্চে এই বিষয়ে একটি গবেষণাপত্রও প্রকাশিত शसहक। গবেষণা বলছে ১৬ বছর বয়সের একজন কিশোর বা কিশোরী ভবিষ্যতে পড়াশোনায় কতটা উন্নতি করতে পারবে, নিজেকে কতটা উন্নত করতে পারবে, তা তার বাড়িতে কত বই আছে ও সে ছোট থেকে কতটা বই পড়েছে, এই দুইয়ের উপর অনেকটাই নির্ভর করে।

গবেষকরা এ-বিষয়ে প্রায় ১০০ শতাংশ একমত, যে বেশি বেশি বইয়ের মধ্যে যেসব বাচ্চারা ছোট থেকে বড় হয়, তাদের উচ্চশিক্ষিত ও বুদ্ধিমান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

এমনকী এটাও দেখা গেছে যার প্রথাগত ডিগ্রি নেই, কিন্তু প্রচুর বই পড়েছেন, আবার অন্যদিকে । বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচুর ডিগ্রিধারী কিন্তু বই সেভাবে পড়েননি, এই দ্বিতীয় শ্রেণির তুলনায় প্রথম শ্রেণিটির আইকিউ লেভেল অনেকসময়েই বেশি হয়। আশ্চর্য হলেও এটাই ঘটনা।

গবেষকরা হিসেব কষে ও বিভিন্ন তথ্য নিয়ে দেখেছেন একটানা ১৬ বছর কেউ যদি প্রচুর পরিমাণ বইয়ের মধ্যে থাকেন, তাহলে পাণ্ডিত্য, গাণিতিক দক্ষতা অনেকটাই বাড়ে। তবে এতটা পড়ে নিশ্চয়ই ওই প্রশ্নটার উত্তর জানতে ইচ্ছে করছে, যে সারা বিশ্বের মধ্যে কোন দেশের মানুষের বাড়িতে সবচেয়ে বেশি বই থাকে? তা হল এস্তোনিয়া। সেখানে গড়ে প্রত্যেকের বাড়িতে ২১৮-২২০টি বই আছে।

আর ৩৫ শতাংশ মানুষের বাড়িতে সাড়ে তিনশোর উপর বই বর্তমান। এরপরে যেসব দেশ ওই তালিকায় স্থান পেয়েছে তা হল, নরওয়ে (২১২), সুইডেন(২১০), চেক রিপাবলিক (২০৪)। ব্রিটেনে প্রতিটি বাড়িতে গড়ে ১৪৩ টি ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গড়ে ১১৪টি করে বইয়ের মালিক বাসিন্দারা।

এই গবেষণার মূল গবেষক ড. জোয়ানা সিকোরা বলেন, ‘এতিদন। আমরা দেখে এসেছি যে মানুষ হয় ভাষা ব্যবহারে দক্ষ হয়, নয়তো অঙ্কে ভালো হয়।

তবে এবারের গবেষণার যে ফল আমরা পেলাম তা আশাতীত। যদিও এখন ডিজিটাল প্রযুক্তির যুগে মানুষ বই পড়া নিয়ে কতটা আগ্রহী সেই বিষয়টা নিয়ে সন্দেহের অবকাশ থেকেই যায়, তবুও মাবাবাকে ছোট থেকে বই পড়তে দেখলে বাচ্চাদের মধ্যে যে একটা রিডিং হ্যাবিট গড়ে ওঠে তা গবেষকরা স্বীকার করে নিয়েছেন।-যুগশঙ্খ

খবরটি শেয়ার করুন..








© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com

Desing & Developed BY W3Space.net