বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:৫৩ অপরাহ্ন



রাত্রিযাপন নিষিদ্ধ হচ্ছে না সেন্টমার্টিনে

রাত্রিযাপন নিষিদ্ধ হচ্ছে না সেন্টমার্টিনে



দীর্ঘ মেয়াদে সেন্ট মার্টিন দ্বীপটি শুধু জীববৈচিত্র্যের জন্য সংরক্ষণ করা হবে এমন একটি সিদ্ধান্তে এসে দ্বীপটিতে পর্যটকদের রাত্রি যাপন নিষিদ্ধ করেছিল সরকার। সিদ্ধান্তটি গ্রহণের তিন মাস পর সরকার নতুন করে জানাচ্ছে, এমন নিষেধাজ্ঞা সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে পর্যটকদের ওপর থেকে। তবে বহাল থাকছে সেন্টমার্টিনে যাওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন ও একটি নির্দিষ্ট ফি প্রদানের বিষয়টি।

দ্বীপে বসবাসকারীদের কর্মসংস্থান ও বিভিন্ন হোটেল-মোটেল বিনিয়োগকারীদের পুনর্বাসনের বিকল্প ব্যবস্থা না হওয়া পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি মন্ত্রণালয়ের নেওয়া সিদ্ধান্তে বলা হয়েছে, পর্যটকরা সেন্ট মার্টিন যেতে চাইলে আগে জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।  এ জন্য থাকবে একটি নির্দিষ্ট ফি। দ্বীপে কারা প্রবেশ করছে তাদের তথ্য সংরক্ষণ করা হবে। এছাড়া একই পর্যটক বারবার যেতে পারবেন না।

এ বিষয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহিবুল হক গণমাধ্যমকে জানান, সেন্টমার্টিনে পর্যটকদের রাত্রিযাপন সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ করা না হলেও সীমিত করা হচ্ছে। কারণ দ্বীপটির স্থানীয়দের কর্মসংস্থান মূলত বেড়াতে যাওয়া পর্যটকদের ঘিরেই চলে আসছে। এছাড়া অনেক ব্যবসায়ীদের সেখানে বিভিন্ন হোটেল-মোটেলে বিনিয়োগ রয়েছে। রাত্রিযাপন নিষিদ্ধ এমন সিদ্ধান্ত হঠাৎ করে নিলে তাদের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়বে। এ কারণে বিকল্প ব্যবস্থা চিন্তা করা হচ্ছে। দ্বীপসংশ্লিষ্ট এবং স্থানীয়দের পুনর্বাসনের পরই রাত্রিযাপন বন্ধের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

পর্যটকদের অযাচিত কর্মকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে জীববৈচিত্র্য, দ্বীপের পরিবেশ- এমন অভিযোগ এনে সেখানে পর্যটকদের আগামী বছরের ১ মার্চ থেকে দ্বীপে রাত্রিযাপন নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। সেন্টমার্টিন দ্বীপকে রক্ষা করতে এ ধরনের উদ্যোগ ছাড়া কোনো উপায় নেই বলে জানিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু স্থানীয় এবং ব্যবসায়ীদের জীবিকা এবং ব্যবসার কথা বিবেচনা করে সে সিদ্ধান্ত বদল করা হলো।

উল্লেখ্য, নীল জলরাশি বেষ্টিত এ দ্বীপে ৬৮ প্রজাতির প্রবাল আছে। ১৫১ প্রজাতির শৈবাল, ১৯১ প্রজাতির মোলাস্ক বা কড়ি জাতীয় প্রাণী, ৪০ প্রজাতির কাঁকড়া, ২৩৪ প্রজাতির সামুদ্রিক মাছ, ৪ প্রজাতির উভচর, ২৮ প্রজাতির সরীসৃপ, ১২০ প্রজাতির পাখি, ২০ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী রয়েছে। এছাড়া ১৭৫ প্রজাতির উদ্ভিদ এবং ২ প্রজাতির বাদুড় ও ৫ প্রজাতির ডলফিন দেখা যায়।

খবরটি শেয়ার করুন..








© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com
Desing & Developed BY W3Space.net