রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ০৪:৫৫ পূর্বাহ্ন



নওগাঁয় জেলা প্রশাসকের ভূমিকায় বাস চলাচল স্বাভাবিক

নওগাঁয় জেলা প্রশাসকের ভূমিকায় বাস চলাচল স্বাভাবিক



হাববি, নওগাঁ: মোটর মালিক-শ্রমিক দ্বন্দ্বে প্রায় ৩০ ঘন্টা পর নওগাঁ জেলার সকল রুটে বাস চলাচল শুরু হয়েছে। ফলে ভোগান্তীর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে যাত্রীরা। শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে শহরের বালুডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড থেকে নওগাঁ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের নির্দেশে বাস চলাচল বন্ধ ছিল। প্রশাসনের হস্তপেক্ষে শনিবার বিকেল ৪ টা থেকে বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়।

নওগাঁ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের অভিযোগ, নওগাঁ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ওমর ফারুক কোন নিয়মনীতি না মেনে গত তিন মাস থেকে ঢাকা থেকে নওগাঁ রুটে ‘ফারুক এন্টারপ্রাইজ’ নামে বাস চলাচল করছেন। তিনি মালিক সমিতিতে ভর্তি ও রুট পারমিট না নিয়ে গত ১৫/২০ দিন থেকে আবারও নতুন করে ৪/৫ টি বাস চলাচল করায় নিয়মনীতিক্ষুন্ন হচ্ছে এবং বাস চলাচলে স্বাভাবিক প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় ক্ষমতার অপব্যবহার করে অস্থীতিশীলতা পরিবেশ সৃষ্টি করেছিলেন। সমিতির নিয়ম মানতে একাধিকবার চিঠি দেয়া হলেও কোন সদুত্বর না দিয়ে তিনি জোরপূর্বক ভাবে বাস চলাচল করছেন। একারণে সকাল থেকে আন্ত:জেলা রুটে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছিল। শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে শনিবার বিকেল ৪ টার পর প্রায় ৩০ ঘন্টা পর বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ভোগান্তীতে পড়া যাত্রীরা বলছেন, তাদের গন্তব্যস্থলে পৌছতে আগের চেয়ে দূরত্ব অনুযায়ী ২০/৩০ টাকা বাড়তি গুনতে হয়েছিল। আবার যাতায়াতেও ভোগান্তীর কমতি ছিলনা।

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ওমর ফারুক বলেন, মোটর শ্রমিকের পক্ষ থেকে কোন সমস্যা নাই। মালিকরাই বাস বন্ধ রেখেছিলেন। আর আমার সকল কাগজপত্র ঠিক থাকায় রাস্তায় বাস নামিয়েছিলাম। আপাতত আমার ঢাকার বাসটি বন্ধ রাখা হয়েছে।
নওগাঁ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সাধারন সম্পাদক শফিকুল আলম বলেন, ফারুক এন্টারপ্রাইজকে কেন্দ্র করে আমাদের মালিক পক্ষের সকল বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছিল। তিনি নিজ স্বার্থ চরিতার্থ করতে কোন কিছুর নিয়মকানুন না মেনে অভ্যন্তরীন রুট থেকে ঢাকায় বাস চলাচল করাচ্ছিলেন। তিনি চেন অব কমান্ড ফলো করেন না। এটাকে সুন্দর একটা পরিবেশ তৈরী করতে বাস চলাচল বন্ধ রেখে প্রতীকি ধর্মঘট পালন করা হয়েছিল।

নওগাঁ জেলা প্রশাসক মো: মিজানুর রহমান বলেন, মালিক ও শ্রমিকদের স্থানীয় বিরোধের জেরে স্থানীয় যে যানবাহন ছিল সেগুলো বন্ধ ছিল। যাত্রীদের ভোগান্তির কথা ভেবে দুই পক্ষকে ডেকে সমঝোতার আশ্বাস দিয়ে আপাতত বাস চলাচল স্বাভাবিক করা হয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন..








© All rights reserved 2018 somoyersangbad24.com
Desing & Developed BY W3Space.net